চট্টগ্রাম টেস্টে কেমন হচ্ছে বাংলাদেশের একাদশ?

ঘরের মাঠে টেস্টে ২৩ মাস জয়হীন থাকা বাংলাদেশ দল জয়ে ফিরতে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে নামতে যাচ্ছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটি শুরু হচ্ছে আগামীকাল (রবিবার)। ম্যাচটিতে কেমন হবে বাংলাদেশের একাদশ? সব শঙ্কা দূর করে সাকিব আল হাসান ফিরছেন চট্টগ্রাম টেস্টে। তিনি ফেরায় কম্বিনেশন সাজানো অনেকটাই সহজ হয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ দলের।

করোনামুক্ত হয়ে আজ (শনিবার) ৩৫ মিনিট ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন সাকিব। এই সময়ে সাবলীল ব্যাটিং করতে দেখা গেছে দেশসেরা এই ক্রিকেটারকে। আর তাতেই শতভাগ ফিট সাকিবকে দেখে ফেলেছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। সাকিবের ম্যাচ খেলার ফিটনেস আছে দাবি করে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেছেন, ‘সাইকোলজিক্যাল দিক থেকে এগিয়ে থাকায় সাকিব ভাই খেলতে পারবেন। যদি চান, খেলতে চান, তাহলে খেলতে পারবেন। ব্যাটিং দেখে মনে হয়েছে সাকিব ভাই শতভাগ ফিট।’

সাকিব একাদশে থাকলে বাংলাদেশ কি বাড়তি একজন বোলার নাকি একজন ব্যাটার নিয়ে একাদশ সাজাবে? মুমিনুল অবশ্য একাদশের বিষয়টি স্পষ্ট করেননি। ছয় ব্যাটার ও পাঁচ বোলার নাকি সাত ব্যাটার ও চার বোলার নিয়ে খেলবে, সেটি রবিবার সকালে উইকেট দেখেই সিদ্ধান্ত নেবেন অধিনায়ক।

মুমিনুল বলেছেন, ‘কাল (রবিবার) সকালে আমরা উইকেট দেখবো। এরপর সিদ্ধান্ত নেবো চারটা বোলার নাকি পাঁচটা বোলার নিয়ে খেলবো। কম্বিনেশন এখনও ঠিক হয়নি।’

তবে সাকিবের উপস্থিতিতে দল নির্বাচনের কাজ যে সহজ হয়ে গেছে, সেটি স্বীকার করলেন মুমিনুল, ‘সাকিব ভাই আসাতে কম্বিনেশনটা একটু ভালো হয়। পেসার বোলার নিয়ে রবিবার সিদ্ধান্ত নেবো, দুইটা খেলবে নাকি তিনটা খেলবে।’

দক্ষিণ আফ্রিকায় সাকিবের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ সবশেষ টেস্ট খেলেছিল তিন বোলার নিয়ে। অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে স্পিনার তাইজুল ইসলাম খেলেছিলেন। দুই পেসার ছিলেন খালেদ আহমেদ ও এবাদত হোসেন। দেশের মাটিতে সবশেষ টেস্টে সাকিব খেলেছিলেন পাকিস্তানের বিপক্ষে। যেখানে দুই পেসারের সঙ্গে একাদশে ছিলেন মিরাজ ও তাইজুল।

সাকিবের অনুপস্থিতিতে শেষ পাঁচ ম্যাচের সবক’টি খেলেছেন ইয়াসির আলী। তবে সাকিব ফেরায় তার জায়গা হারানো অনেকটাই নিশ্চিত। চট্টগ্রামের ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে বাড়তি বোলার নিতেই এমন ভাবনা টিম ম্যানেজমেন্টের। সেক্ষেত্রে বোলিং অপশন বাড়াতে হবে। দুই পেসারের সঙ্গে তিন স্পিনার নিয়ে একাদশ সাজানো হতে পারে। সাকিবের সঙ্গে দেখা যেতে পারে নাঈম ইসলাম ও তাইজুল ইসলামকে। এছাড়া পেস আক্রমণে বাঁহাতি পেসার শরিফুলের সঙ্গে এবাদতকে দেখা যেতে পারে।

জহুর আহমেদের ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে তিন পেসারের বিলাসিতা দেখাবে না মুমিনুলের দল। আগের টেস্টে খালেদ ভালো করলেও টিম কম্বিনেশনের কারণে হয়তো বাদ পড়তে পারেন। মুমিনুল বলেছেন, ‘চট্টগ্রামে যেহেতু রান বেশি হয়, বোলারের চাহিদা বেশি থাকবে।’

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস (উইকেটকিপার), নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম, এবাদত হোসেন ও শরিফুল ইসলাম।

About Newz Nyc

Check Also

সে আমার রেকর্ড ভাঙলে খুশি হবো: উমরানকে নিয়ে শোয়েব

প্রায় দুই দশক ধরে অক্ষত শোয়েব আখতারের সবচেয়ে দ্রুতগতির বলের রেকর্ড। ২০০৩ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *